শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
গ্রেফতার হলেন (ডাকসু) সাবেক সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর আগামীকাল বলয়গ্রাস সূর্যগ্রহণ, ১০০ বছরে এত দীর্ঘ গ্রহণ দেখা যাবে প্রথমবার নভেল করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন কামাল লোহানী সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন আইসিইউতে অবশেষে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে আশা দেখালো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪৫ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৩২৪৩ করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪৩ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৪০০৮ : স্বাস্থ্য অধিদপ্তর শাহরুখ খানসহ অনেক তারকাই অপমান করেছিলেন সুশান্তকে গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুবরণ কারী কার বয়স কত জানুন মৃত্যুর মিছিলে ভারত আজ তৃতীয়- বার্তা২৪ঘন্টা নিউজ

করোনায় ‘হাই রিস্ক’ মানুষ কারা? কী করা উচিত তাঁদের?

নিজস্ব প্রতিনিধি
  • প্রকাশকাল : শুক্রবার, ২২ মে, ২০২০
  • ৯৫ জন খবরটি দেখেছেন

রোনাভাইরাস বা এই ধরনের সংক্রমণে ‘হাই রিস্ক’ কারা? এককথায় বয়স্ক মানুষজন, যাঁদের বিপদের আশঙ্কা বেশি৷ কমবয়সি টগবগে ছেলেমেয়েদের বা সুস্থসবল মাঝবয়সিদের যেমন সংক্রমণের আশঙ্কা কম বা সংক্রমণ হলেও বিপদের আশঙ্কা তেমন নেই, এঁদের ক্ষেত্রে ব্যাপারটা সে রকম নয়৷ একটু এদিক থেকে সেদিক হলে তাঁরা ঝট করে রোগে পড়ে যেতে পারেন, অবস্থা জটিল হতে পারে৷ এমনকি, মারা যাওয়াও অসম্ভব নয়৷

সমস্যা সেটাই৷ সম্প্রতি ল্যানসেট জার্নালে প্রকাশিত এক প্রবন্ধে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, ধূমপায়ী ও ডায়াবিটিস-হাইপ্রেশারে আক্রান্ত ৬৯-এর চেয়ে বেশি বয়সি পুরুষরাই নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণে সবচেয়ে বেশি মারা যান৷ চিনের উহানে ১৯১ জন কোভিড ১৯-এর রোগীর উপর সমীক্ষা চালিয়ে দেখা গিয়েছে, তাঁদের মধ্যে যে ৫৪ জন মারা গিয়েছেন, তাঁদের বেশির ভাগেরই ডায়াবিটিস ও হাইপ্রেশার ছিল এবং বয়স ছিল ৭০-এর বেশি৷ কাজেই হাই রিস্ক মানুষদের বিশেষভাবে সাবধান হয়ে রোগ প্রতিরোধের চেষ্টা করা দরকার৷ তবে সে প্রসঙ্গে যাওয়ার আগে দেখে নেওয়া যাক, কাদের ‘হাই রিস্ক’ বলা হয়৷

হাই রিস্ক মানুষ কারা

• ৬৫-র বেশি বয়স৷এরপর বয়স যত বাড়বে, বিপদের আশঙ্কা তত বেশি৷

• দীর্ঘদিন ধরে কোনও ক্রনিক রোগ শরীরে বাসা বেঁধে থাকলে সমস্যা বেশি৷ যেমন হাইপ্রেশার, ডায়াবিটিস, হৃদরোগ, ফুসফুসের সমস্যা বা কিডনিরজটিলরোগ৷

• খুব বেশি ধূমপান করেন৷

• বিভিন্ন কারণে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম৷ যেমন,

• ক্যান্সারের চিকিৎসা চলছে৷

• রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস, লুপাস, মাল্টিপল স্কেলরোসিস বা ইনফ্ল্যামেটরি বাওয়েল ডিজিজ তথা আলসারেটিস কোলাইটিস বা ক্রোনস ডিজিজ আছে৷

• এইচআইভি পজিটিভ৷

• কিডনি বা শরীরের অন্য কোনও প্রত্যঙ্গ কিংবা বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট হয়েছে৷

তাহলে কী করবেন এঁরা

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সব্যসাচী সেন বলছেন, “প্রথম কাজ মাথা ঠান্ডা রাখা৷ সংক্রমণ হওয়া মানেই রোগ হওয়া নয়৷ বা হলেও যে একেবারে সামলানো যাবে না, বেঘোরে মারা পড়তে হবে, তেমন নয় ব্যাপারটা৷ যে যে নিয়মের কথা বলা হচ্ছে তা যদি মেনে চলেন, বিপদের আশঙ্কা যথেষ্ট কম৷ কারণ, এই জীবাণু খুব বেশি ছোঁয়াচে হলেও বিপজ্জনক নয় তেমন৷ কাজেই টেনশন করবেন না। টেনশন করলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কিন্তু আরও কমে যায়। নিয়ম মানা অভ্যাস করুন৷ আপনার নিজস্ব চিকিৎসকের পরামর্শ মতো চলুন৷”

যে যে নিয়ম মেনে চলতে হবে

• ধূমপান ছাড়ুন সবার আগে৷ কারণ সারা শরীর তথা শ্বাসযন্ত্র, ফুসফুস ইত্যাদির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমাতে এর অবদান বিরাট৷ আর এই ভাইরাস যেহেতু শ্বাসতন্ত্রকেই আক্রমণ করে, ধূমপান চালিয়ে গেলে সংক্রামিত হওয়ার আশঙ্কা আরও বেড়ে যায়৷ বাড়ে জটিলতার আশঙ্কা৷ আর এ বিপদ শুধু আপনার একার নয়৷ আপনার আশেপাশে যাঁরা আছেন, তাঁদেরও৷ প্যাসিভ স্মোকিংয়েও বিপদ প্রায় একই রকম বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা৷ কাজেই নিজের জন্য না হোক, প্রিয়জনের খাতিরে এই বদভ্যাসটি ত্যাগ করুন৷

• সাধারণ সাবধানতাগুলি মেনে চলুন অক্ষরে অক্ষরে৷ যেমন, ঘন ঘন হাত ধোওয়া, ঘরদোর পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত রাখা, যে কোনও ধরনের জমায়েত এড়িয়ে যাওয়া ইত্যাদি৷

• যা যা ওষুধ নিয়মিত খান, সে সব একটু বেশি করে এনে রাখুন৷ হঠাৎ শরীর খারাপ হলে, বেরনোর মতো পরিস্থিতি যদি না থাকে, কাজে লাগবে৷

• চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে জেনে নিন, আপনার যে রোগ আছে, তার বাড়াবাড়ি হলে কী ওষুধ খেতে হবে ও কী কী নিয়ম মানতে হবে৷

• নভেল করোনা ভাইরাস সংক্রমণ যদি হয়েই যায়, কী কী করতে হবে তা চিকিৎসক ও আত্মীয়দের সঙ্গে আলোচনা করে প্ল্যান করে নিন৷ চিন্তা করবেন না৷ বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কিছু সাবধানতা মেনে ঘরে থাকলেই সমস্যা কমে যায়৷

• ঘরে থাকতে গেলে খাবারের ব্যবস্থা কী হবে তা ঠিক করে রাখুন৷ নিজেরা রান্না করে খাবেন না হোম ডেলিভারি অর্ডার করবেন৷ সপ্তাহ দু’য়েকের মতো বাজারহাট যেন করা থাকে৷

• রোগের উপসর্গ সম্বন্ধে সচেতন থাকুন৷ জ্বর, সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্ট ইত্যাদি হলে চিকিৎসককে জানান৷ তিনি যেভাবে চলতে বলবেন, সেভাবে চলুন৷

• রোগের বাড়াবাড়ি, অর্থাৎ শ্বাসকষ্ট, বুকে চাপ ধরা বা ব্যথা, আচ্ছন্ন হয়ে পড়া, ভুল বকা, ঠোঁট ও মুখ নীলচে হয়ে যাওয়া ইত্যাদি হলে কোন হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে তা আগে থেকে জেনে রাখুন৷

• চিকিৎসক যদি বাইরের সঙ্গে সবসংযোগ বিচ্ছিন্ন করে পুরোপুরি ঘরে থাকতে বলেন, তা-ই করুন৷

আরো পড়ুন
©২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । বার্তা২৪ঘন্টা.কম
Theme Develop By bdithome.com
error: Content is protected !!